স্কুইড গেম | Explained in Bangla-Squid Game Review & Analysis

নেটফ্লিক্সে গত ১৭ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাওয়া “স্কুইড গেম” নামের একটি কে-সিরিজ পুরো সোস্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় লাগিয়ে দিয়েছে।

সবারই ওয়ান ওয়ার্ড স্টেটমেন্ট, নেটফ্লিক্সে তাদের অন্যতম সেরা সিরিজ নিয়ে এসেছে দর্শকদের জন্য, দর্শকও তাদের ভালোবাসা বুঝিয়ে দিয়েছে ফলাফল, স্কুইড গেম এখন নেটপ্লিক্সের ইতিহাসের সর্বকালের সেরা জনপ্রিয় বা বেশিবার দেখা শো’তে পরিনত হয়েছে।স্বয়ং নেটপ্লিক্সের ধারণার বাইরে ছিলো এমন কিছু ঘটতে যাচ্ছে।

সেরা জনপ্রিয় সিরিজ যার ভিউ এখন পর্যন্ত সব থেকে বেশি।সিরিজটি ৬৬টি দেশে টপ রেং কিং এ জায়গায় করে নিয়েছে যেটা কেউ কল্পনাও করতে পারেনি।

এটি একটি মাল্টি জনরার সিরিজ যেখানে একশন,সাসপেন্স,সারভাইভ,ড্রামা সব কিছু একসাথে পাবেন।প্রতি মূহুর্তেই থ্রিল সাসপেন্সে ভরপুর এই সিরিজে কি কি রয়েছে?

Squid Game Review & Analysis

⚠️হাল্কা স্পয়লার ⚠️

সিরিজের গল্প অনুসারে মূলত টার্গেট করা হয় অতি সাধারণ কিংবা অসাধারণ কাউকে নয় অতি শোচনীয় মানুষদের যাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে,ঋনে জর্জরিত ব্যক্তিদের কিংবা টাকাই যাদের সব সমস্যার সমাধান করতে পারে।

ছোট বেলায় কত ধরনের খেলাই তো খেলেছি আমরা এলোনা বেলোনা,দড়ি টান,মারবেল ইত্যাদি।

সিরিজে ছোট বেলার সেই খেলা গুলোই ৪৫৬ জন খেলোয়াড়দের নিয়ে ৬ দিনের ৬ টি গেমস খেলানো হবে যার বিনিময়ে দেওয়া হবে বিলিয়ন বিলিয়ন উন।

খেলোয়াড়দের জন্য রয়েছে গেমের তিনটি রুলস

১. খেলোয়াড়েরা মাঝ পথে গেম বন্ধ করতে পারবে না।

২. বন্ধ করতে চাইলে তাকে এলিমেনেট করা হবে।

৩. যদি বেশিরভাগ খেলোয়াড় গেম বন্ধ করতে চায় গেম বন্ধ করে দেওয়া হবে।

রুলস গুলো শুনে নিশ্চয়ই খুব সহজ মনে হচ্ছে? খেলোয়াড়েরা তখনও জানতো না ছোটবেলার সেই এলিমিনেটেড এই এলিমিনেটেড না!

গেমস গুলোর আলাদা আলাদা কিছু নামও রয়েছে।

  • Red light green light,
  • Honey comb,
  • Tug of war,
  • Marble game,
  • Glass bridge এবং শেষ গেম Squid game..

এই গেম গুলো থেকে কিছু শিক্ষনীয় ব্যাপার লক্ষ্য করা যায় জীবনে কখনো রেড লাইট আসবে কখনো গ্রিন লাইট রেড লাইটে আপনাকে থামতে হবে গ্রিন লাইটে আপনাকে দৌড়াতে হবে।কখনো তাড়াহুড়ায় সফলতা অর্জন করতে পারবেন না।

দুর্বল দলকে নিয়ে ঠিকঠাক প্লেনিং করেও কঠিন পরিস্থিতিতে এবং খুব সক্ষম দলের বিরুদ্ধেও জেতা সম্ভব।

জীবনে কখনো কাউকে অতি বিশ্বাস করতে নেই কারন খারাপ সময়ে সে যত আপনই হোক না কেন ধোকা দিবে।

৯ এপিসোডের এই সিরিজটি আপনাকে সবসময় একটা টান টান উত্তেজনায় রাখবে। প্রতি এপিসোড শেষে পরের এপিসোড দেখার প্রচন্ড আগ্রহ জাগাবে। এপিসোড গুলোর রানটাইমও অত বেশি না ১ ঘন্টা করে।দেখতে দেখতে কখন শেষ হয়ে যাবে টের পাবেন না।

ক্যারেক্টর গুলোর এত সুন্দর করে ডেভেলপমেন্ট করা হয়েছে যা বলতেই হবে।তাদের চোখের উপর যেভাবে ফোকাস করা হয়েছে তাদের পাস্ট সম্পর্কে কিছু না দেখালেও খুব সহজেই ক্যারেক্টর গুলোর সাথে ইমোশনালি এটাচড হতে পারবেন।💙

যারা কে-মুভি/ড্রামা দেখেন না তারাও এ ড্রামাটি দেখে এঞ্জয় করবেন। আর যারা কে-মুভি/ড্রামা লাভার রয়েছে তাদের জন্য তো এটা মাস্ট ওয়াচ]।

এই চমৎকার সিরিজটির লেখক এবং পরিচালক Hwang Dong- hyuk এপিসোড ১,২ লিখতেই ৬ মাস সময় নিয়েছিলেন।

সিজন ২ এর স্ক্রিপ্টেরও কাজ চলছে….😊 তবে আসতে দেরি হবে।

[বিঃদ্রঃ সিরিজটির সব গুলো এপিসোডের বাংলা সাবটাইটেল রয়েছে]।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *