কন্টেন্ট রাইটার হতে যা জানা আপনার জন্য আবশ্যক

আধুনিক যুগে দিন দিন গড়ে উঠছে নানান ধরনের কোম্পানি এবং তাদের প্রোডাক্ট বা সার্ভিস এর প্রচার প্রসার এর জন্য প্রয়োজন পড়ছে কন্টেন্ট রাইটার ( content writer )।

একজন কন্টেন্ট রাইটার এর সুন্দর লিখনি তেই প্রোডাক্ট বা সার্ভিস মানুষ এর কাছে আকৃষ্ট হচ্ছে বা প্রসার হচ্ছে। তাই দিন দিন কন্টেন্ট রাইটার এর চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

একজন প্রফেশনাল content writer হতে গেলে কি কি বিষয় জানতে হবে?

[1] industry selection :

একজন ভালো মানের content writer কোনোদিন একাদিক জায়গায় কাজ করে না ,তারা যেই কোনো একটি বিষয় এর ওপর ভালোভাবে কাজ করে থাকে।এবং নিজেকে expert গড়ে তোলে।

অনেক ধরনের ইন্ড্রাস্টি রয়েছে আপনি চাইলে বিভিন্ন বিষয়য়ে লিখতে পারেন। যেই বিষয়ের উপর আপনার ভালোলাগে সেই বিষয়য়ের উপর লিখতে পারেন।

মনে করেন আপনার cricket,football খেলা দেখতে অনেক ভালো লাগে। সারাদিন দেখলেও মন ভোরে না। আপনি চাইলে খেলাধুলা বিষয় নিয়ে লিখতে পারেন।

[2] rescaech for content idea :

নিশ বা ইন্ডাস্ট্রি বেঁচে নেওয়ার পর সে নিশ সম্মন্ধে গবেষণা করে সব তথ্য বের করতে হবে, এবং তথ্য বের করে সেরা আইডিয়া গুলো নিয়ে কাজ করতে হবে।

[3] know your readers :

একজন ভালো মানের content writer জানে যে তার readers কারা,তাদের পছন্দ এবং অপছন্দ কি? তাদের মধ্যে কত সংখ্যায় পুরুষ এবং কত সংখ্যায় মহিলা। তার কোন বিষয়ে বেশি জানতে চায়?

কোন বিষয়ে তাদের চাহিদা বেশি এই সব বিষয়গুলো একজন ভালো content writer কে ভালো ভাবে জানতে হবে।এবং তার ওপর ভিত্তি করে আপনাকে content writing করতে হব।

[4] pick a topic :

আপনাকে যে কোনো একটি topic বা বিষয় বের করতে হবে এবং তার ওপর লিখতে হবে। একটি কনটেন্ট এর মধ্যে একাধিক বিষয় ওপর লিখা যাবে না,লিখলে লিডার রা চিন্তিত হয়ে যাবে, পরে কিছু বুঝতে পারবে না।

[5] simpticity :

একজন ভালো content writer তার কনটেন্ট কে ভালো ভাবে উপস্থাপন করতে পারে। কমন শব্দ বা বাক্য গুলোর মাধ্যমে, বা ছবি /গ্রাফিক এর মাধ্যমে সহজ করে তুলতে পারে।সব সময় চিন্তা করবেন সহজ ভাবে উপস্হাপন করতে ,এবং টপিক রিলেটেড ছবি/গ্রাফিক সুন্দর করে কনটেন্ট ফুটিয়ে তুলবেন

[6] review :

একটি article লিখা শেষ হয়ে গেলে সেটা পাবলিশ হওয়ার আগে ভালোভাবে পড়ে দেখেন এবং গ্রাহক হয়ে উপলদ্ধি করতে হবে এবং চিন্তা করবেন যে আমি এই article টা কেন পড়তেছি এবং এইটা পড়ে আমার কি লাভ হচ্ছে? আমি কি শিখতে পারছি?

আমি ভালোভাবে বোঝতে পারছি কিনা? এইটা ভালোভাবে জানতে এবং বোঝতে হবে। একজন ভালো কন্টেন রাইটার কোনোদিন রাইটিং করার সাথে সাথে article পাবলিশ করবেনা।

[7] try different styles :

একাদিক নিয়মে কনটেন্ট রাইটিং করা শুরু করুন। একজন ভালো কনটেন্ট রাইটার একাধিক নিয়মে কনটেন্ট রাইটিং করতে পারে। উদাহরণ হিসেবে বাজারে অনেক ধরণের বই রয়েছে যেগুলা হাজার হাজার লেখক লেখিকা লিখেছে।

আপনি কয়জনের নাম জানেন ,হাতে গোনা কয়েকজন ,তাদের কে কেমনে জানি? কারণ তারা অন্য সবার থেকে আলাদা ,তারা এমন কিছো লিখে যেটা অন্য কেও লিখে না,তাদের লিখার ধরণ আলাদা তাদের লিখার মধ্যে নতুনত্ব রয়েছে।

যার কারণে আমাদের সবার কাছে তারা পরিচিত মুখ। আপনিও চেষ্টা করবেন ভালো কন্টেট রাইটার সেক্ট করবে সভ্যময় নতুন কিক তৈরী করতে।

Set a schedule :

কনটেন্ট রাইটিং করার জন্য একটা রুটিং করা খুব দরকার। যেটা সপ্তাহে ৩দিন। এবং দিন এ দুই থেকে তিন ঘন্টা। সেট(sat) করতে হবে। একজন ভালো কনটেন্ট রাইটার রুটিং ছাড়া কাজ করে না।

আরও জানুন

কনটেন্ট রাইটিং এর জন্য সেরা ৫ টি টিপস বেস্ট মেথড

কনটেন্ট রাইটিং কি এবং কিভাবে কন্টেন্ট রাইটিং শুরু করবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *